Friday , 2 February 2024 | [bangla_date]
  1. অপরাধ
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. জাতীয়
  5. পর্যটন
  6. বিনোদন
  7. বিশেষ সংবাদ
  8. বৃহত্তর চট্রগ্রাম
  9. মুক্তমত
  10. লাইফস্টাইল
  11. শিক্ষা
  12. সংগঠন
  13. সাক্ষাৎকার
  14. সারা বাংলা
  15. সিলেট

গোয়াইনঘাটে জমি দখল ও খাল খননের অভিযোগ

প্রতিবেদক
Rafiq
February 2, 2024 6:12 pm

রুবেল আহমেদ :গোয়াইনঘাটে জমি দখলের অভিযোগ।  সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় ভোগদখলীয় জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার ১নং রুস্তমপুর ইউনিয়নের নয়াপাড়া বীরমঙ্গল হাওরে এক্সেভেটার এমএস ১৪০-০২ দিয়ে সরকারি রাস্তার ধার থেকে ভোগদখলীয় জমির মাটি কেটে বিক্রি করছে একদল র্দুবৃত্ত। যারা স্থানীয়ভাবে লাটিয়াল, দাঙ্গাবাজ এবং ভূমিখেকো হিসেবে পরিচিত। সরেজমিন গিয়ে জানা যায়, শুক্রবার (২ জানুয়ারী) গোয়াইনঘাট উপজেলার বীরমঙ্গল হাওর, জেএল নং ২১, খতিয়ান নং ৩২৯, দাগ নং ৫২৮, ভূমির পরিমাণ ১.০০০০ (এক) একর জমির মালিক পক্ষে নয়াপাড়া বীরমঙ্গল হাওর এলাকার মরহুম সুজাত আলীর ছেলে হাবিব উল্লাহ বাদি হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এতে আসামী করা হয় একই উপজেলার নয়াপাড়া বীরমঙ্গল হাওর এলাকার মরহুম তৈয়ব আলীর ছেলে মমিন মিয়া, মরহুম নুরুল হকের ছেলে বাহারউদ্দিন সহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (১ জানুয়ারী) সকাল ৮টার দিকে মমিন মিয়া, বাহার উদ্দিন সহ আরও কয়েকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হাবিব উল্লাহর ভোগদখলীয় জমি থেকে এক্সেভেটার মেশিন দিয়ে মাটি কাটছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে হাজির হয় হাবিব উল্লাহ। তিনি বাঁধা দিলে মমিন ও বাহার মিয়া সহ তাদের লোকজন অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। একই সাথে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দেখে নেয়ার হুমকী দেয়। ইতোমধ্যে এলাকার লোকজন জড়ো হয়। পরে মমিন, বাহাররা ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়।

জানা যায়, হাবিব উল্লাহ সহ তার ভাইয়েরা উক্ত জমি ক্রয়সুত্রে মালিক হয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ ভোগ দখল, ব্যবহার সহ রক্ষণাবেক্ষণ করে আসছে। স্থানীয় ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মতিন মিয়ার সাথে মুঠোফোন যোগাযোগ হলে তিনি বলেন, আমি বিষয়টি সম্পর্কে অবগত আছি। গোয়াইনঘাট থানার ১নং রুস্তমপুর ইউনিয়নের বিট অফিসার ফখরুল ইসলাম সেখানে যান এবং মাটি কাটা বন্ধ করার নির্দেশ দেন। এস আই ফখরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি যেহেতু জায়গা জমিনের ব্যাপার। সেহেতু আমি উভয়পক্ষকে থানায় আসার কথা বলি। পরে সাবেক মেম্বার মখলিছ মিয়া বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সমাধান করবেন বলে জানান। যদি কোন কারণে সুষ্ঠু সমাধান না হয়, তখন আইনানুগ ব্যবস্থা নিব। এ বিষয়ে গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলামের মুঠোফোনে কল দিলে তিনি কল রিসিভ করেননি।

সর্বশেষ - অপরাধ

আপনার জন্য নির্বাচিত